মাহমুদ হাসান কচি – নারায়ণগঞ্জ ৭১ : নারায়ণগঞ্জে শুরু হয়ে গেছে খেলা । আর খেলা শুরুতেই এসপি হারুণের এক উইকেটের পতন ঘটেছে। উল্লেখিত মন্তব্যটি সমালোচকদের। জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)র  ইন্সপেক্টর  মুহা. সরাফত উল্লাহকে ক্লোজ করা হয়েছে। এই খবরটি প্রকাশিত হওয়ারপর পরই নগরীর বিভিন্ন স্থানে এবিষয়ে শুরুহয় আলোচনা সমালোচনার ঝড়।

গতকাল রবিবার রাত সাড়ে দশটায় নগরীর ২নংরেল গেটস্থ বটতলার টি ষ্টলে চা পান রত আড্ডাবাজ আলোচকদের মধ্যে থেকে হঠাৎই একজন বলে উঠেন এসপি হারুণের প্রথম উইকেটের পতন ঘটল ডিবি’র ওসি’র ক্লোজের মধ্যদিয়ে।

গত কিছুদিন যাবৎ নারায়ণগঞ্জে সবচেয়ে প্রভাবশালী এমপি জননেতা শামীম ওসমান বনাব পুলিশ সুপার হারুণ অর রশিদের মধ্যকার যে টেষ্ট ম্যাচ শুরু হয়েছে সে খেলার প্রথমবলেই ওসমানের বলার এসপি  হারুণের এক ব্যাটসম্যানকে শূন্য রানে বোল্ডআউট করে সাজঘরে পাঠিয়ে তাও আবার মিডেল ষ্ট্যাম্পটি বলের আঘাতে চূর্ণবিচূর্ণ করে দিয়েছে কিন্তু ব্যাটসম্যান টেরই পায়নি।

প্রভাবশালী রাজনীতিবিদ শামীম ওসমান বনাম পুলিশের এসপি হারুণের খেলার অন্যতম নায়কদের মধ্যে একজন ডিবি’র ওসি মুহা. সরাফত উল্লাহ্ ।

কিভাবে সরাফত নায়কদের মধ্যে একজন হলেন প্রশ্ন করা হলে উত্তরে সমালোচক বলেন, দুই দলের মধ্যে যখন সাজ সাজ ভাব ঠিক তখনই পাগলা মেরী এন্ডাসনে ডিবি হানাদেয় এবং এখানেই ক্ষান্ত থাকেনি হানাদিয়েছে ভালো করেছে কিন্তু মদ বিয়ার ব্যবসায় জড়িতর অভিযোগে যে তানভীর টিটুকে অভিযোগ এনে পরিস্থিতিটি উতপ্ত করে দিয়েছে। যা আগুনে ঘি ঢালার উপক্রম।

কারণ তানভীর টিটু এমনই একজন ব্যক্তি যে,যার ব্যক্তিত্বে মতো মানুষ এই নগরীতে পাওয়া মুসকিল।  তার বগ্নিপতি শামীম ওসমান এই পরিচয়টি কোনদিন কোথাও কৎসিম কালেও দেয়নি বা দেয় না অথচ শামীম ওসমানে স্যালক হওয়ার অপরাধে তাকে একটি অপবাদের কালি মাখতে চাইছে পুলিশের কয়েকজন ভদ্রলোক।মেরী এন্ডারসনের মদ বিয়ারের সাথে জড়িত থাকার যে অপবাদটি তানভীর টিটুর উপর দিতে চাইছে পুলিশ সেটি যে মিথ্যে আর র্নিদোষ মানুষের বিরুদ্ধে চক্রান্ত করলে মহান রাব্বুল আল আমিন এমনই ভাবে বিচার করেন।

সমালোচকরা আরো বলেন, সেই সময়টা বেশী দূরে নয় এবার যে কোন মূহুর্তেই ব্যবসায়ীদের বলে বোল্ড আউট হতে পারে এসপি হারুণ আর রশিদ।আর এরই মধ্যে দিয়ে হবে সত্যের জয় মিথ্যের পরাজয়।