নারায়ণগঞ্জ৭১ : মোটরসাইকেলের হেড লাইটের আলো চোখে পড়ায়  দেওভোগ মাদ্রাসা এলাকার কুখ্যাত মাদক ডিলার তুহিন বাহিনী ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে শাকিল (৩৫) নামে এক যুবককে নৃশংসভাবে হত্যা করেছে।

এ সময় শাকিলকে বাঁচাতে এসে সন্ত্রাসীদের কোপে গুরুতর আহত হয়েছে পানি ব্যবসায়ী সজিব (৩২), শাওন (২৫) ও সুভাষ (৩০) সহ ৭ জন। এ ঘটনা গতকাল শনিবার রাত পৌণে ১১টায় পশ্চিম দেওভোগ মাদ্রাসা হাসেম বাগ এলাকায় ঘটেছে। 

এ ঘটনায় এলাকায় নেমে এসেছে আতংক ও উত্তেজনা। আহতদের মধ্যে ২জনকে ঢামেক হাসপাতাল ও ৬ জনকে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়। 

আহতদের স্বজন ও এলাকাবাসী সূত্রে জানাগেছে, ঘটনার সূত্রপাত পানি ব্যবসায়ী সজিবের সাথে। সজিব মোটরসাইকেল নিয়ে হাসেম বাগ এলাকা অতিক্রমকালে মোটর সাইকেলের হেডলাইটের আলো মাদক ডিলার তুহিনের চোখে  পড়লে সে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। সে হেডলাইটটি ভেঙ্গে ফেলে।

এ নিয়ে সজীবের সাথে কথাকাটি শুরু হলে তুহিন তার দলবল নিয়ে এলাপাতাড়ি কোপাতে শুরু করে। সজিব গুরুতর আহত হয়। সজিবকে বাঁচাতে এসে সন্ত্রাসীদের কোপে পথচারীসহ একেএকে  আহতের সংখ্যা দাঁড়ায় ৮ জন।

গুরুতর অবস্থায় শাকিলসহ দুজনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথেই মারা যায় শাকিল। পরে অন্যান্যদের নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়। 

এলাকাবাসী জানায়, ক্রসফায়ারে নিহত সন্ত্রাসী হাসান এর উত্তরসুরি তুহিন এখন পশ্চিম দেওভোগ মাদ্রাসা এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। তহিন বাহিনী গতকাল তুচ্ছ ঘটনায় এক নিরীহ যুবককে কুপিয়ে হত্যা করলো।