নারায়ণগঞ্জ৭১: নারায়ণগঞ্জের রাজনীতির জিরো পয়েন্ট থেকে হিরো হয়ে গেলেন নাসিক কাউন্সিলর দুলাল প্রধান। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের অঙ্গ সংগঠন স্বেচ্ছা সেবকলীগ নারায়ণগঞ্জ মহানগর সাধারণ সম্পাদক, নাসিক ২৩ নং ওয়ার্ডের জনপ্রিয় কাউন্সিলর দুলাল প্রধান যে এলাকায় কতোটুকু জনপ্রিয় সেটাও সেই সাথে প্রমাণ হয়ে গেল।তবে অবশ্যই নাসিক কাউন্সিলর দুলাল প্রধানের হিরো হওয়ার পিছনে সবচেয়ে বেশী অবদান রেখেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।এরজন ডিবি পুলিশকে ধন্যবাদ দেয়া প্রয়োজন নাসিক কাউন্সিলর দুলাল প্রধানের উল্লেখিত মন্ত্যব্য গুলো নারায়ণগঞ্জ সদর ও বন্দরের আমজনতার।

পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ঠ ধর্মগ্রন্থ পবিত্র কোরআন ও হাদিস শরীফে উল্লেখ আছে মহান আল্লাহ রাব্বুল আল আমিন যাই করেন তা মঙ্গলের জন্য দুলাল প্রধানের গ্রেফতারের ঘটনাটিই তার বাস্তব দৃষ্ঠান্ত।

গত বৃহস্পতিবার (১আগস্ট) রাতে শহরের নবীগঞ্জ ফেরি ঘাট এলাকা থেকে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার ৫ সহযোগীকেও আটক করে ডিবি। ডিবির হাতে গ্রেফতারেরপর প্রায় ৩ ঘন্টা দুলাল প্রধান সহ ৬জনকে খুজে পাইনি তাদের স্বজনরা জানান। স্বেচ্ছা সেবকলীগ নারায়ণগঞ্জ মহানগর সাধারণ সম্পাদক দুলাল প্রধান সহ ৬জন নিখোজ হওয়ার খবরটি ছড়িয়ে পড়লে নগর বাসীর মধ্যে সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জে সংগঠিত আলোচিত ৭ খুনের আতংক বিরাজকরে ।কারণ দুলাল প্রধান কাউন্সিলর নিহত নজরুল ও ছিলেন নাসিক কাউন্সিলর।নজরুল যে দলের রাজনীতিতে ছিলেন কাউন্সিলর দুলালও সে দলের । তাছাড়া নজরুলের সাথে ছিলো ৬ জন নজরুল সহ মোট ৭ জন কাউন্সিলর দুলালরাও ৭জন।সব মিলিয়ে সেভেন মার্ডার মতো দুলাল প্রধান সহ ৬ জনের ভাগ্যে জোটে কিনা এমন সব উদ্ভট আলোচনা শুরু হয়।আতংক বিরাজ শুরু হয়।২৩নং ওয়ার্ড থেকে শুরু করে নারায়ণগঞ্জের সর্বত্রই ওদের জন্য অনেকেই দোয়া করেন সেভেন মার্ডার মতো দুলাল প্রধান সহ ৬ জনের ভাগ্যে যাতে না ঘটে।

রাত ১০টার দিকে নারায়ণগঞ্জের অনলাইন গুলোতে সংবাদ প্রকাশিত হয় যে, দুলাল প্রধান সহ ৬জনকে ডিবি পুলিশ আটক করেছে। এরপর সকলের মাঝে শান্তি ও শস্তি ফিরে আসে ওদের পরিবারের সদস্যদের মধ্যে।

দুলাল প্রধান সহ ৬জনকে ডিবি পুলিশ আটকেরপর যতোক্ষণই দুলাল প্রধান নিখোজ ছিলো ততোক্ষণ জন সাধারণের মনে যে স্থানটি তৈরী হয়েছে সেটির মূল ভূমিকাই ছিলো ডিবি পুলিশের এরপর ফেন্সিডিল উদ্ধারের বিষয়টি যারা দুলাল প্রধানকে চেনেন তারা ছাড়া অনেকেই বিশ্বাস করলেও মোটেও মেনেনিতে পারেনি সাধারণ মানুষ। আর তাই ফেন্সিডিল উদ্ধারের বিষয়টি সাধারণ মানুষের মনে আরোও সন্ধেহের কারণ হয়ে দাড়াঁয়। একেতো গ্রেফতারেরপর নিখোজ এবং পরে ফেন্সিডিল সহ গ্রেফতারের ঘটনাটি সাধারণ মানুষের কাছে পরিস্কার হয়ে যায়।

গ্রেফতারেরপর দুলাল প্রধান সহ ৬জনকে কাঠগড়ায় তোলারপর সমস্ত বিষয়টি’র সম্পর্কে দুলালের পক্ষের আইনজীবী মহামান্য আদালতের কাছে তুলে ধরারপর বিজ্ঞ আদালত বিষয়টি বুঝেন যে, এটা রাজনৈতিক খেলা প্রতিপক্ষের লোকেররা এমনটি ঘটিয়েছে যার কারণে আদালত নাসিক কাউন্সিলর দুলাল প্রধান সহ ৬জনের জামিন মঞ্জুর করেন।

প্রতিপক্ষ চেয়েছিলো কাউন্সিলর দুলাল প্রধানকে এভাবে হেনস্তা করতে কিন্তু হিতে হয়েছে বিপরীত আর এই প্রতিপক্ষের চক্রারন্তর কারণে এবং ডিবি পুলিশের আর্শিবাদে ঐঘটনায় দুলালের জনপ্রিয়তা ও গ্রহন যোগ্যতা বেড়ে যায়।চত্রান্তকারীরা চেয়েছিলো রাজনীতিতে দুলাল প্রধানকে জিরো বানাতে কিন্তু হয়েগেলো হিরো আর এটাই হচ্ছে মহান আল্লাহ রাব্বুল আল আমিন যাই করেন তা বান্দার মঙ্গলের জন্যই করেন।

জানা গেছে ,জেলা গোয়েন্দা শাখা ( ডিবি)’র হাতে মাদকসহ গ্রেপ্তার নাসিক ২৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাইফুদ্দিন আহমেদ দুলাল প্রধানসহ ৬ জনের জামিন মঞ্জুর করেছেন আদালত। 


 সোমবার (৫ আগস্ট) বেলা ১২টার দিকে জেলা ও দায়রা জজ আনিসুর রহমানের আদালত জামিন  শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।
কাউন্সিলর দুলাল ছাড়াও জামিনপ্রাপ্ত অন্যেরা হলেন- কামাল হাসান (৪৭), মনির হোসেন মনু (৫০), তানভীর আহম্মেদ সোহেল (৪১), মো.মজিবর রহমান( ৫২) এবং কালন (৪২)।

জামিন শুনানিতে অংশগ্রহণ করেন, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এড, হাসান ফেরদৌস জুয়েল।  

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার (১আগস্ট) রাতে শহরের নবীগঞ্জ ফেরি ঘাট এলাকা থেকে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার ৫ সহযোগীকেও আটক করে ডিবি।

জেলা পুলিশ সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনাকালে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) গোপন সূত্রে জানতে পারে যে, একটি সাদা রং এর মাইক্রোবাসে করে কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ী মাদক নিয়ে নবীগঞ্জ ঘাট পার হচ্ছে।

পরে ডিবি‘র একটি অভিযানিক দল গাড়িটি নবীগঞ্জ ঘাট অতিক্রম করার সময় আটক করে। ওই গাড়িতেই ছিলেন কাউন্সিলর দুলাল প্রধান।

এ সময় গাড়িটি ও যাত্রীদের তল্লাশীকালে দুলাল প্রধানের পরিহিত প্যান্টের সামনে ডান পকেটে ২ বোতল ফেন্সিডিল এবং শার্টের বুক পকেট থেকে ফেন্সিডিল বিক্রির নগদ ৩২ হাজার টাকা জব্দ করা হয়।

এ সময় তার সহযোগী কামাল হাসানের প্যান্টের পকেটে থেকে ২ বোতল ফেন্সিডিল পাওয়া যায়। আটককৃত গাড়ি তল্লাশী করে উদ্ধার করা হয় আরো ৪৬টি ফেন্সিডিলের বোতল।

জিজ্ঞাসাবাদে কাউন্সিলর দুলাল প্রধান মাদকের সাথে সম্পৃক্ততার বিষয়টি স্বীকার করে জানায়, কাউন্সিলর এবং মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক উক্ত পরিচয়ের আড়ালে সে এবং তার সহযোগীরা একে অপরের সহায়তায় ফেন্সিডিলের ব্যবসা করে আসছিলো। 

পরে মাদক দ্রব্য আইনে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। 
 

1365