নারায়ণগঞ্জ৭১: জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ বলেছেন, ‘নারায়ণগঞ্জের প্রতিটি সাংবাদিক আমাদের সহযোগিতা করছেন। আপনাদের সহযোগিতার কারণেই নারায়ণগঞ্জে যে কাজটি ধরেছে সেটাই সফল হয়েছে। নারায়ণগঞ্জ পুলিশ আগে এরকম ছিল না। নারায়ণগঞ্জের পুলিশ যে কারো বিরুদ্ধে কারো মামলা নিবে, কারো বিরুদ্ধে অভিযান ঘোষণা করবে সেই সৎ সাহস ছিল না। এখন নারায়ণগঞ্জ পুলিশ অভিযোগ নিতে শিখেছে অপরাধীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে শিখেছে এবং আপনারা আমাদের সহযোগিতা করেছেন।’

বুধবার (৭ আগস্ট) দুপুরে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের নতুন কার্যালয় উদ্বোধন করেন তিনি।

এসপি বলেন, ‘ডিবি অফিসটা আলাদা থাকার কারণে ডিবির বিরুদ্ধে অভিযোগ আসতো। দীর্ঘ দিন পরে আমরা ডিবি অফিস এসপি অফিসের চারতলায় স্থানান্তর করেছি। আশা করি মানুষ তার বিচারের জায়গাটা নিশ্চিত হতে পারবে। ডিবির কোন কর্মকর্তা আকাম করলে আমাকে জানাবেন আমি ব্যবস্থা নেবো। আগামী দিনগুলোতে ডিবির কার্যক্রম আরো জোরদার করবো। আমরা যে কাজটি করেছি সেটার ফিডব্যাক নিতে আমরা প্রতিদিনই বসবো।

তিনি আরো বলেন, ‘মানুষ যেন চাঁদাবাজি, ছিনতাইয়ের কবলে না পড়ে। রাস্তায় দাড়িয়ে যানজট করতে না পারে সেদিকে লক্ষ্য রাখছি। নারায়ণগঞ্জের মানুষ স্বস্তিতে থাকতে চায়। পুরোপুরিভাবে তাদের স্বস্তি দিতে পারছি কিনা জানি না। তাবে আমাদের চেষ্টা ও আন্তরিকতায় কোনো কমতি নেই। আমরা বাস ভাড়া নিয়েও কথা বলছি। আমরা সাধারণ মানুষের পাশে আছি। প্রত্যেকটি সেক্টরে আমরা হাত দেবো। যেখানেই অন্যায় সেখানেই নারায়ণগঞ্জ পুলিশ।’

জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন এই কর্মকর্তা বলেন, ‘ঈদগাহে নামাজ পড়াকে নিয়ে যে কোন্দাল ছিল সেটা নিয়েও আমরা কাজ করেছি। বিশেষ করে ফতুল্লার তালতলায় রাস্তায় হাট বসেছিল আমরা তা তুলে দিয়েছি। সিদ্ধিরগঞ্জে জোর করে গরু নামানো হচ্ছিল তাতে আমরা হস্তক্ষেপ করেছি। তাদের বিরুদ্ধে মামলা নিয়েছি। নৌপথে চাঁদাবাজি বিরুদ্ধেও আমরা কাজ করছি। আশা করি সেটা ঠিক হয়ে যাবে। নাগরিকের যত ধরনের সহযোগিতা প্রয়োজন তা করার জন্য আমরা প্রস্তুত। ঈদের জন্যও আমরা পর্যাপ্ত নিরাপত্তা দিচ্ছি। আমরা চাই সাধারণ মানুষ শান্তিপূর্ণভাবে, স্বাচ্ছন্দে ঈদ পালন করুক।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মনিরুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) আব্দুল্লাহ আল মামুন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিবি) নূরে আলম, সহকারি পুলিশ সুপার (ট্রাফিক) সালেহউদ্দিন আহমেদ, সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আসাদুজ্জামান, ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আসলাম হোসেন, ডিবির পরিদর্শক এনামুল হক, জেলা পুলিশের মিডিয়া উইংয়ের কর্মকর্তা পরিদর্শক মো. সাজ্জাদ রোমন প্রমুখ।