নারায়ণগঞ্জ৭১: দেশ ও দেশবাসীর জানমালের নিরাপত্তায় সর্বদা দেশের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা নিয়োজিত থাকেন। দেশ ও দেশবাসীর স্বার্থ রক্ষার্থে যাদের যে অবদান, তা কোনদিনও হবে না অম্লান। -বৃষ্টি-ঝড় কিংবা রমজান, ঈদে পরিবার ছেড়ে পথে নাগরিকদের সঙ্গেই কাটে তাদের বিশেষ দিনগুলো। সে অর্থেই বলা বাহুল্য দেশ ও দেশবাসীর স্বার্থের জন্য তাদের যে ত্যাগ ও অবদান তা নিঃসন্দেহে ভূয়সী প্রশংসার দাবীদার তারা। তাদের মহান ত্যাগ ও অবদানের প্রতিদান শোধ করার কোন জনতার পক্ষেই সম্ভব নয়। এর জন্য প্রতিটি দেশের এসকল বাহিনীর কাছে প্রতিটি জাতীই চীরঋনী হয়ে থাকবে চীর জীবন।

সোমবার (১২ আগস্ট) ঈদুল আজহার দিন ভোর থেকেই নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ও এর আশপাশে দেখা যায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের অবস্থান। নাগরিকদের নিরাপত্তায় তারা ঈদের দিনও রাস্তায় দায়িত্ব পালন করছেন।

পরিবার-পরিজন ছাড়া এমন ঈদের দিন কাটাতে কেমন অনূভুতি হয় জানতে চাইলে প্রায় সবাই জানান, রাষ্ট্রের অর্পিত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে জীবনের এমন অনেক ঈদ পথেই কাটিয়েছেন তারা। এমনও ঈদ রয়েছে যার আগে ও পরেও ছুটি মেলেনি তাদের।

জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার পরিদর্শক সাজ্জাদ রুমন বলেন, ঈদ হলেও পরিবার ছেড়ে নাগরিকদের সঙ্গেই প্রতিটি সৈনিকের দিনটি কাটাতে হয়৷ এটাই আমাদের চাকরির নিয়ম ও আমরা নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বদ্ধপরিকর। দেশপ্রেম ও কর্তব্যপরায়ণতার এক অন্যরকম অনুভূতি পাওয়া যায় এতে।

তবে পরিবারের সবাইকেই এ দিনটিতে অনেক মিস করেন তারা, যোগ করেন তিনি।