নারায়ণগঞ্জ৭১: আড়াইহাজারে ওমর আলী (৯০) নামে এক বৃদ্ধাকে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।তিনি স্থানীয় কালাহাড়িয়ার মধ্যাচর এলাকার মৃত লাকু মাতাব্বরের ছেলে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসক আরিফ ভূঁইয়া জানান, বৃদ্ধার প্রচুর রক্তক্ষরণ হচ্ছিল। এতে তাকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। শুক্রবার (২৩ আগস্ট) বিকালে স্থানীয় লড়াহাটি মসজিদে অর্থ প্রদান করাকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটে।
আহতদের ছেলে সাইফুল ইসলাম সবুজ জানান, মধ্যারচর এলাকার হাজির মিয়ার ছেলে বাবুল, মজিবুর ও কামালের লড়াহাটি মসজিদে অর্থ প্রদানকে কেন্দ্র করে বিরোধের সৃষ্টি হয়। এরই জেরে ঘরে ঢুকে তার বৃদ্ধা বাবাকে দা, ছুরি ও লাঠিসোটা দিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করে।

এদিকে অভিযুক্ত বাবুল মুঠোফোনে বলেন, স্থানীয় জাহাঙ্গীর সিকদার, তোফাজ্জল ও আব্দুল বাতেনের সামনে ওমর আলী সিলিং ফ্যানে হাত দিয়ে নিজেই রক্তাক্ত হয়েছেন। আমাদের বিরুদ্ধে করা অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।

তিনি আরো বলেন, আমাদের ফাঁসানোর উদ্দেশ্যে তিনি (ওমর আলী) পরিকল্পিতভাবেই এ ঘটনা ঘটিয়েছেন।
এদিকে স্থানীয় কালাপাহাড়িয়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ বিজয় কুমার কর্মকার বলেন, ‘আমি লোক মারফত শুনেছি বৃদ্ধা তার নিজের ঘরেই চলন্ত সিলিং ফ্যানের সঙ্গে আঘাতে তার শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাত প্রাপ্ত হয়েছেন।’
তিনি আরো বলেন, তবে বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে। হামলার কোনো ঘটনা ঘটে থাকলে পরবর্তীতে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।