প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা সম্পন্ন হয়েছে।

মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) রাত ৮টায় বিশাল বিজয়া শোভাযাত্রা শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে সদর থানার ৫নং ঘাট এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদীতে দেবী দুর্গার প্রতিমার বিসর্জন দেওয়া হয়।

মিশনে বিশুদ্ধ সিদ্ধান্ত পঞ্জিকা মতে, সকালে বিজয়া দশমী পূজা শুরু হয়। পরে হয় সিঁদুরদান পর্ব।

সন্ধ্যার পরই মাকে বিদায় জানাতে রাস্তায় নেমে আসে ভক্তরা। পরে রাত ৮টার দিকে সেখান থেকে ট্রাকে ট্রাকে করে বের হয় শোভাযাত্রা। পরে শোভাযাত্রাটি চাষাঢ়া, ২নং রেল গেইট, ১নং রেল গেইট হয়ে ৫নং ঘাটে যায়।

এ সময় রাস্তার দুই পাশে দাঁডড়য়ে বিপুলসংখ্যক মানুষ শোভাযাত্রা উপভোগ করে। বিশেষ করে বঙ্গবন্ধু সড়ক এলাকায় মানুষ শোভাযাত্রায় অংশও নেয়।

এ ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জের পূজা উদ্যাপন পরিষদের নেতারা বলেন, এ থেকে এটাই প্রমাণিত হয়, বিজয়া শোভাযাত্রা এখন শুধু হিন্দু সম্প্রদায়ের নয়, বৃহত্তর জনগোষ্ঠীরও উপভোগ করার মতো। পয়লা বৈশাখের শোভাযাত্রার মতোই আনন্দ ভাগাভাগি করে নেয় তারা।

এর আগে পূজার্থীদের নাচে-গানে মুখরিত ছিল ৫নং ঘাট এলাকা। রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত ২টি মন্ডপের প্রতিমা বিসর্জন হয়েছে ৫নং ঘাটে। শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিমা বিসর্জন সম্পন্ন করার জন্য পুলিশ প্রশাসন এবং নৌপুলিশ সদস্যরা আন্তরিকভাবে কাজ করেছেন। প্রতিমা বিসর্জনের সময় ধ্বনিত হয় ‘দুর্গা মায় কি জয়’।